২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতক ১ম বর্ষ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। দেশের সাতটি পাবলিক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২৯ মে ২০২১ইং তারিখ অনুষ্ঠিত হবে।

 

 


ভর্তির যোগ্যতা:
২০১৭/২০১৮ সালে যে সকল ছাত্র/ছাত্রী এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে এবং নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ পয়েন্ট আছে সে সকল ছাত্র/ছাত্রীরা ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।
২০১৯/২০২০ সালে উচ্চমাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় যাদের নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ সহ সর্বমোট জিপিএ (৪র্থ বিষয়বাদে) ৮.০০ আছে তারা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে পারবে।

 

 


আবেদনকারীদের মধ্য থেকে মেধার ভিত্তিতে চূড়ান্ত ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেওয়া হবে।
যে সকল ছাত্র/ছাত্রী এসএসসি/এইচএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ হতে পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গণিত বিষয়সমূহে উত্তীর্ণ হয়েছে এবং উভয় ক্ষেত্রে প্রতিটিতে নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ পয়েন্ট আছে সে সকল প্রার্থীরা ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।
বিশেষ কোটা সমূহ:
মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/নাতী/নাতনী
বৃহত্তর পার্বত্য চট্রগ্রাম অঞ্চলের উপজাতি ও অ-উপজাতি
বৃহত্তর পার্বত্য চট্রগ্রাম ব্যতীত অন্যান্য উপজাতি

অনুষদ  আসন সংখ্যা
ভেটেনারি অনুষদ ১৯১ জন
কৃষি অনুষদ ভুক্ত (কৃষি, ফুড সেফটি ম্যানেজমেন্ট) ৪৩২ জন
পশু পালন অনুষদ ১৯১ জন
কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ১৩৩ জন
কৃষি প্রকৌশল ও কারিগরি অনুষদ ভুক্ত বিভাগ (এগ্রিকালচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং, ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং) ১৫০ জন।
মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ ১৩৩ জন
সর্বমোট ১২৩০ জন


মেধা তালিকা:
লিখিত পরীক্ষার জন্য ১০০ নম্বরের এমসিকিউ এবং এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয় ব্যতিত প্রাপ্ত জিপিএর ৮ ও ১২ গুণ অর্থাত এসএসসি ৪০ এবং এইচএসসিতে ৬০ নম্বর যোগ করে ২০০ নম্বরের মধ্যে নূন্যতম ৪০ নম্বর পাস ধরে মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু = ২ মে ২০২১ইং

ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শেষ = ১০ জুন ২০২১ইং

ভর্তি পরীক্ষা = ৩২ জুলাই ২০২১ইং

ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ = ৫ আগষ্ট ২০২১ইং
ভর্তির ফি = ৭০০ টাকা।
প্রার্থীদেরকে প্রবেশপত্র A4 সাইজ অফসেট পেপারে প্রিন্ট করে আবেদনকারীর স্বাক্ষরসহ পরীক্ষার দিন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে। উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যক্রম অনুসরণ জীববিদ্যা, রসায়ন, পদার্থ বিজ্ঞান ও গণিত বিষয় থেকে বহুনির্বাচনী পদ্ধতিতে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষার পাস নম্বর ৩০। প্রতিটি ভুল উত্তর প্রদানের জন্য .২৫ নম্বর কর্তন করা হবে।

মন্তব্য