আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ ক্যাডেট এএফএমসি ও এএমসি দুইটি ক্যাটাগরিতে এবং বাংলাদেশ আর্মি পরিচালিত ৫টি বেসরকারি আর্মি মেডিকেল কলেজে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ এমবিবিএস কোর্সে ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে।

 


ভর্তি আবেদন শুরু ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ইং
ভর্তি আবেদন শেষ সময় ১২ মার্চ ২০২১ইং
আবেদন ফি-১.০০০ (এক হাজার) টাকা।
লিখিত ভর্তি পরীক্ষা- ৯ এপ্রিল রোজ শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকায়।
প্রবেশ পত্র ডাইনলোড- ০১ এপ্রিল ২০২১ইং থেকে ০৮ এপ্রিল ২০২১ইং পর্যন্ত।

 


শিক্ষাগত যোগ্যতা:
এএফএমসি এর এএমসি ক্যাডেট ক্যাটাগরি এর জন্য বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২০১৭ বা ২০১৮ সালের এসএসসি/২০১৯ বা ২০২০ সালের এইচএসসি থেকে মোট জিপিএ হতে হবে ১০.০০ পয়েন্ট।
বেসরকারি ৫টি আর্মি মেডিকেল কলেজের ক্যাডেট এর জন্য ২০১৭ এবং ২০১৮ সালের এসএসসি/২০১৯ বা ২০২০ সালের এইচএসসি বিজ্ঞান বিভাগ থেকে নূন্যতম জিপিএ ৯.০০ থাকতে হবে। তবে উপজাতীয় কোটার প্রার্থীদের প্রাপ্ত জিপিএর যোগফল ৮.০০ থাকতে হবে। কোন উপজাতীয় প্রার্থীর এসএসসি/এইচএসসি ৩.৫ এর নিচে গ্রহণযোগ্য হবে না। ২০১৭ সালের পূর্বে এসএসসি পাস পরীক্ষার্থীরা আবেদনের অযোগ্য হবে।
শারীরিক যোগ্যতা:

আর্মস ফোর্সেস ভর্তি পরীক্ষায় ছাত্র/ছাত্রীরদের মেডিকেল বোর্ডের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

 বিষয় পুরুষ মহিলা
উচ্চতা নূন্যতম ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি ৫ ফুট ২ ইঞ্চি
ওজন নূন্যতম ১০০ পাউন্ড ৯০ পাউন্ড
সম্প্রসারিত ৩২ ইঞ্চি ৩০ ইঞ্চি

আবেদনের যোগ্যতা:
০১ জুলাই ২০২০ তারিখে শিক্ষার্থীর সবোর্চ্চ ২০ বছর হতে হবে।
শিক্ষার্থীকে অবশ্যই বিজ্ঞান বিভাগের পাস হতে হবে।
বিজ্ঞান বিভাগের জীববিজ্ঞান বিষয়ে নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে।
এসএসসি/এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম জিপিএ ১০.০০ থাকতে হবে।
উপজাতীয় প্রার্থীর ক্ষেত্রে নূন্যতম জিপিএ ৮.০০ থাকতে হবে। এবং উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে।

আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২০২১AFMC MBBS AMC Admission Circular 2AFMC MBBS AMC Admission Circular 3AFMC MBBS AMC Admission Circular 4


বিষয় ভিত্তিক নম্বর
পদার্থবিদ্যা = ৩০, রসায়নবিদ্যা = ৩০, জীববিদ্যা = ৩০, ইংরেজী = ০৫, সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি) = ০৫। লিখিত পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তর প্রদানের জন্য ০.২ নম্বর কর্তন করা হবে এবং লিখিত পরীক্ষা ১০০ নম্বরের মধ্যে নূন্যতম ৪০ নম্বর পেতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের কম প্রাপ্ত শিক্ষার্থী অকৃতকার্য বলে গণ্য হবে। শুধুমাত্র কৃতকার্য পরীক্ষার্থীদের মেধাতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

মন্তব্য